‘শিশুবক্তা’ খ্যাত রফিকুল ইসলাম আটক


একাত্তর ডেস্ক :: এবার রাষ্ট্রবিরোধী, উসকানিমূলক ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টার অভিযোগে ‘শিশুবক্তা’ হিসেবে পরিচিত রফিকুল ইসলাম মাদানীকে নেত্রকোনা থেকে আটক করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত রফিকুল ইসলাম মাদানী এক ফেসবুক লাইভে এসে রাষ্ট্রবিরোধী ও উস্কানীমুলক এবং ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করেন। বক্তব্যে তিনি, সকলকে এক হয়ে আগুন লাগিয়ে দেয়ার হুমকি প্রদান করেন। বাংলাদেশে ইসলাম পালন করা যাচ্ছে না এমন বক্তব্য প্রদান করেন।

র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ‘আজ বুধবার নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলা থেকে তাঁকে আটক করা হয়।’

খন্দকার আল মঈন আরও বলেন, ‘রফিকুল ইসলাম মাদানী নানা সময়ে বিভিন্ন বিষয়ে উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে থাকেন। তিনি রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, তিনি রাষ্ট্রবিরোধী নানা উসকানিমূলক কথাবার্তা বলেন। এতে জনমনে ভীতির সঞ্চার হয়েছে বলে আমাদের কাছে অভিযোগ রয়েছে।’

র‍্যাবের কর্মকর্তা বলেন, ‘শিশুবক্তার এসব ঔদ্ধত্যপূর্ণ কথাবার্তা জনসাধারণের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া তৈরি করেছে। যা সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে পারে। তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে আরও বিস্তারিত জানানো হবে।’

নেত্রকোনা জেলার বাসিন্দা রফিকুল ইসলাম বয়সে যুবক হলেও শারীরিক গঠনের কারণে তাঁকে শিশুর মতো দেখায়। গলার স্বরও অনেকটা শিশুর মতোই। তিনি ধর্মীয় বক্তা হিসেবে জনপ্রিয়। এই কারণে লোকজন তাঁকে ‘শিশুবক্তা’ বলে অভিহিত করে থাকেন। যদিও এই নাম নিয়ে তিনি নিজেও অনেক সময় আপত্তি করেছেন।

এর আগে গত ২৫ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে রাজধানীর মতিঝিল এলাকায় বিক্ষোভ চলাকালে রফিকুল ইসলাম মাদানীসহ ১১ জনকে আটক করা হয়েছে। কয়েক ঘণ্টা আটকে রেখে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

একাত্তরেরকথা/ইআ