সুনামগঞ্জে হত্যায় জড়িতদের ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:: দক্ষিণ সুনামগঞ্জের পূর্ব পাগলা ইউনিয়নের দামোধরতপী গ্রামে সম্পত্তির ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে বিরোধের জেরে সৎ দুলাভাইয়ের চুরিকাঘাতে শ্যালক খুনের ঘটনায় জড়িতদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার (১২ এপ্রিল)  দুপুর ১২ টায় দামোধরতপী পয়েন্ট এলাকায় নিহত রাসিক মিয়ার পরিবার ও এলাকাবাসীর আয়োজনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন পূর্ব পাগলা ইউপি চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন, সাবেক চেয়ারম্যান আমিরুল  হক বেগ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সমুজ আলী, নিহতের চাচা ফারুক মিয়া, নিহত রাসিক মিয়ার ছোট ভাই আশির মিয়া, মা আনোয়ারা বেগম, স্ত্রী রওশন সহ প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তব্যে তারা বলেন, রাসিক মিয়ার খুনী নাইজুল হক, তার স্ত্রী ছামিনা বেগম, শ্বাশুড়ি নুরুন নেছা ও শ্যালিকা রিনা বেগম সহ এই খুনের ঘটনায় জড়িত প্রত্যেককে সুষ্ঠ তদন্ত সাপেক্ষে আইনের আওতায় এনে ফাঁসি কার্যকর করার দাবী জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য আজির উদ্দিন, সাবেক ইউপি সদস্য আরজক আলী, মউজুল মিয়া, আছকির আলী, রহমত আলী, রফিক আলী সহ স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ।

উল্লেখ্য, দামোধরতপী গ্রামের মৃত সফিক মিয়ার দ্বিতীয় স্ত্রী ও তৃতীয় স্ত্রীর সন্তানদের মধ্যে সম্পত্তির ভাগ ভাটোয়ারা নিয়ে গত সোমবার ৫ এপ্রিল বিকালে দ্বিতীয় স্ত্রীর ছেলে রাসিক মিয়া ও তৃতীয় স্ত্রীর মেয়ে ছামিনা বেগমদের মধ্যে সম্পত্তির ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। একপর্যায়ে ছামিনা বেগমের স্বামী নাইজুল হক ধারালো চুরি দিয়ে শ্যালক রাসিক মিয়ার পেটে আঘাত করে। এসময় রাসিক মিয়া অজ্ঞান হয়ে পড়ে। তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাসিক মিয়া মারা যান। এ ঘটনায় তাৎক্ষনিক দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত সৎ দুলাভাই নাইজুল হক, তার শ্বাশুড়ি নুরুল নেছা, স্ত্রী ছামিনা বেগম, শ্যালিকা রিনা বেগমকে আটক করেন। পরে এই ঘটনায় রাসিক মিয়ার ছোট ভাই নাছির মিয়া বাদী হয়ে আটকৃত ৪ জনের নাম উল্লেখপুর্বক অজ্ঞাতনামা আরো ৩/৪ জনকে আসামী করে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

একাত্তরের কথা/এমএইচ