তাহিরপুরে সন্তানের মা হলো এক পাগলী, বাবা হয়নি কেউ

তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি:: সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে মানসিক প্রতিবন্ধী এক পাগলী ফুটফুটে এক ছেলে সন্তানের মা হয়েছে। তবে, পাগলীটি মা হলেও শিশুটির বাবা হয়নি কেউ। সোমবার (৩ মে) সকাল ১০টায় তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মানুষিক প্রতিবন্ধী পাগলীটি একটি ছেলে সন্তান জন্ম দেয়। এই নিয়ে উপজেলা জুড়ে সমালোচনার ঝড় বইছে।

সূত্রে জানা যায়, তাহিরপুর উপজেলা সদর বাজারে দীর্ঘদিন ধরে পাগলিটি অবস্থান করছে। তার নাম ঠিকানায় ও পরিচয় ঠিকমতো বলতে পারেনা। গত ছয়/সাত মাস পূর্বে হঠাৎ করে এই মানসিক প্রতিবন্ধী পাগলীটি তাহিরপুর বাজারে আসে এবং যেখানে ইচ্ছে সেখানেই ঘুমায়। মানুষের রেখে যাওয়া হোটেলগুলো থেকে যে খাবার পাওয়া যেত তাই খেয়েই সে জীবনধারন করতো।

এদিকে দিন দিন তার শারীরিক অবস্থার পরিবর্তন ঘটতে থাকলে বিষয়টি স্থানীয় সবার নজরে আসে। সোমবার সকালে হঠাৎ করে তার প্রসব ব্যথা উঠলে পাগলটি চিৎকার করতে থাকে। পরে বাজার কমিটির লোকজন তাকে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করলে ফুটফুটে একটি ছেলে সন্তান ভূমিষ্ট হয় তার। বর্তমানে মা ও সন্তান তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে । মা ও সন্তান বর্তমানে সুস্থ রয়েছে বলে জানান হাসপাতালে কতব্যর্রত চিকিৎসকগন।

বাচ্চা প্রসবের পর থেকেই স্থানীয় এক মহিলা নিজ দায়িত্বে শিশু বাচ্চা ও তার মায়ের সেবাযত্নসহ দেখভাল করছেন। এই শিশু বাচ্চাটিকে নিজ সন্তানের মত লালন পালনের দায়িত্ব নিতে চান বলেও জানান তিনি। বাচ্চাটির দ্বায়িত্ব নেবার জন্য তিনি স্থানীয় লোকজন ও প্রশাসনের কাছে দাবী জানিয়েছেন।

তাহিরপুর বাজার বনিক সমিতির সাধারন সম্পাদক এরশাদ আলী জানান, মানসিক প্রতিবন্ধী পাগলীটি অন্ত:সত্তা অবস্থায় হঠাৎ করেই কোথা থেকে এসে বাজারে অবস্থান শুরু করে। আজ সকালে প্রসব ব্যথা উঠলে আমরা তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাই। পরে একটি ছেলে সন্তান ভূমিষ্ট হয় তার।

তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা ডা. সুমন চন্দ্র বর্মন জানান, সদ্য ভূমিষ্ট হওয়া শিশু ও মা ভালো আছে। মা ও শিশুটি এখন আমাদের কাছে পর্যবেক্ষনে রয়েছে। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুল লতিফ তরফদার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বাচ্চাটিকে সুস্থ রাখতে প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

একাত্তরের কথা/এমএইচ