সিলেটে তালামীযের আখেরী চাহার সোম্বা উপলক্ষে আলোচনা সভা

বাংলাদেশ আনজুমানে তালামীযে ইসলামিয়ার সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা রেদওয়ান আহমদ চৌধুরী ফুলতলী বলেন, সৃষ্টির শুরু থেকে রাসূল (সা.) এর আলোচনা প্রাসঙ্গিক হয়ে আছে। বিভিন্ন বর্ণনায় পাওয়া যায় আল্লাহ পাক সর্বপ্রথম রাসূলের (সা.) নূর সৃষ্টি করেছেন। তেমনি এই জগতে রাসূলের (সা.) জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত বিশেষ বৈশিষ্ট্যমণ্ডিত ছিলো যা প্রত্যেক মুমিনের জন্য জানা ও অনুসরণ করা একান্ত কর্তব্য। রাসূল (সা.) জীবনের শেষ সময়ে যে সকল নসীহত করেছেন তা আমাদের জন্য সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি শেষ সময়ে মিসওয়াক ব্যবহার করেছেন যাতে এটা সুন্নাত হওয়া ও ইসলামে পরিচ্ছন্নতার প্রতি গুরুত্বারোপ প্রমাণ হয়। রাসূল (সা.) অন্তিম মুহূর্তে নামায ও অধীনস্থদের সাথে সদাচরণের তাকিদ দিয়েছেন। এ সকল আমল ও নসীহতের পাবন্ধি মুমিনের জন্য আবশ্যক।

বুধবার বিকেলে সংগঠনের সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়ে বাংলাদেশ আনজুমানে তালামীযে ইসলামিয়া সিলেট মহানগর আয়োজিত পবিত্র আখেরী চাহার সোম্বা উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
মহানগরী সভাপতি এস এম মনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক পিয়ার হাসান ও সহ-সাধারণ সম্পাদক কাওছার হামিদ সাজুর যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি হুমায়ূনুর রহমান লেখন।

শাখা সহ-সভাপতি মো. আতিকুর রহমান সাকেরের স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে সূচিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক রেদ্বওয়ানুল হক শিমুল।

অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শাখা সহ-সভাপতি মারুফ আহমদ, মিনহাজুল ইসলাম নিয়াজ, আশিকুর রহমান, সহ-সাধারণ সম্পাদক হোসাইন আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এম. শামছ উদ্দিন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আতিকুল ইসলাম রেদওয়ান, অর্থ সম্পাদক সায়েম ইবনে খায়ের, অফিস সম্পাদক মাহবুবুর রহমান, সহ-অফিস সম্পাদক রাকিবুর রহমান, প্রশিক্ষণ সম্পাদক আরিফ মাহমুদ জামি, সহ-প্রশিক্ষণ সম্পাদক এফ কে জুনেদ আহমদ প্রমুখ।-প্রেসরিলিজ

একাত্তরেরকথা/জেডআই