গণপরিবহনে ন্যায্য ভাড়ার দাবীতে মানববন্ধন

একাত্তর ডেস্ক :: গণপরিবহনে ন্যায্য ভাড়ার দাবীতে সিলেট নগরীতে মানববন্ধন করেছে যাত্রী অধিকার পরিষদ। বুধবার (১৩ অক্টোবর) বিকেল সাড়ে ৪টায় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে সংগঠনের সভাপতি জ্যোতিষ মজুমদারের সভাপতিত্বে ও সহ-সভাপতি এম এ মতিনের পরিচালনায় মানববন্ধনে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দত উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, করোনা সংক্রমনের কারণে সিএনজিতে ৩ জন যাত্রী পরিবহণের সিদ্বান্ত হয়। কিন্তু লকডাউন শিথিল হওয়া সত্ত্বেও সিএনজি চালকরা ৫ জনের পরিবর্তে ৩ জন যাত্রী পরিবহণ করছে এবং যাত্রীদের কাছ থেকে প্রায় দ্বিগুন ভাড়া আদায় করছে। এ সম্পর্কে পরিবহণ শ্রমিক নেতৃবৃন্দ ও পুলিশ প্রশাসন থেকে বলা হয় যে ঢাকা ও চট্রগ্রাম মহানগরের মতো সিলেটেও ৩ জন যাত্রী নিয়ে সিএনজি চলাচলের সিদ্বান্ত নেওয়া হয়েছে।

তারা আরো বলেন, সিএনজি কোনো গণপরিবহণ নয়। আমাদের প্রশ্ন, সিএনজি যদি কোনো গণপরিবহণ না হয় তাহলে তারা লোকাল যাত্রী পরিবহণ করছে কেন? যেখানে ঢাকা এবং চট্রগ্রামে সিএনজি শুধুমাত্র রিজার্ভ সার্ভিস দিয়ে থাকে। তাছাড়া ঢাকা এবং চট্রগ্রামে বাস, মিনিবাস, সহ বিভিন্ন ধরণের গণপরিবহণ রয়েছে। কিন্তু সিলেট মহানগরীতে একমাত্র গণপরিবহন হচ্ছে সিএনজি। বিকল্প গণপরিবহণ চালু না করে হঠাৎ করে সিএনজি ভাড়া বাড়ানো হওয়ায় এর মাশুল দিচ্ছেন সাধারণ যাত্রীরা।

নেতৃবৃন্দ বলেন, বিকল্প গণপরিবহণের ব্যবস্থা করে সিএনজিতে বিধি নিষেধ আরোপ করতে হবে। অবিলম্বে তাদের দাবী না মানা হলে গণ স্বাক্ষর, স্মারকলিপি সহ বৃহত্তর আন্দোলনের হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সুব্রত রায়, সহ-সাধারণ সম্পাদক এমরান আহমদ, সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের প্রভাষক তপন চন্দ পাল, জাগ্রত হাওড় উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি রুহুল আমিন, অ্যাডভোকেট সুব্রত দাস, জুয়েল আহমদ, ছাত্রনেতা আব্দুর রহিম, খায়রুল ইসলাম, সাইফ আহমেদ, রব্বানী, বিজিত দাস প্রমুখ।

প্রেসরিলিজ/একাত্তরেরকথা/ইআ-০৬